রবিবার, ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২১



সদ্য সংবাদ

  •   বাংলাদেশের সব খবর সহ আন্তর্জাতিক, বিনোদন, খেলার খবর ও অন্যান্য সব ধরণের খবর সবার আগে অনলাইনে পেতে চোখ রাখুন "টিএনএন" এ। আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও।

বাংলাদেশ

আশরাফুজ্জামান সরকার, গাইবান্ধাঃ- মাতৃভাষা আন্দোলনের ৬৯ বছর পূর্ণ হবে আগামীকাল ২১ফেব্রুয়ারী,রবিবার। বাঙালি জাতির জন্য এই দিবসটিএকদিকে যেমন চরম শোক ও বেদনার, অন্যদিকে মায়ের ভাষা বাংলার অধিকার আদায়ের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত।

উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং আলোচনা সভাসহ নানা কর্মসূচির মধ্য উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে একুশের মহান শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবে উপজেলার সর্বস্তরের মানুষ। একুশের প্রথম প্রহরে রাত ১২টা ১ মিনিটে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে এর পরপরই শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে।

দিবসটি উপলক্ষে রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। সকালে সকল স্কুল,কলেজ ও অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সকল সরকারি, আধা-সরকারী, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ রাখা হবে। সুর্যোদয়ের সাথে সাথে উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে প্রভাতফেরি শেষে বধ্যভুমিতে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন।

উপজেলা পরিষদ চত্তরে সকাল ১০টায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।১০ :৩০ টায় প্রমিত বাংলা বানান প্রতিযোগিতা বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্র,পলাশবাড়ীতে অনুষ্ঠিত হবে। শেষে ভাষা শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মসজিদ ও মন্দিরে মোনাজাত-প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যেই অমর একুশে পালনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক ও একুশের প্রভাতফেরি প্রদক্ষিণের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে শহীদ মিনার।

উল্লেখ্য, ১৯৫২ সালের এদিনে ‘বাংলাকে’ রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে বাংলার (তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান) ছাত্র ও যুবসমাজসহ সর্বস্তরের মানুষ সে সময়ের শাসকগোষ্ঠির চোখ-রাঙ্গানি ও প্রশাসনের ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে স্বতঃস্ফূর্তভাবে রাজপথে নেমে আসে। মায়ের ভাষা প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে দুর্বার গতি পাকিস্তানি শাসকদের শংকিত করে তোলায় সেদিন ছাত্র-জনতার মিছিলে পুলিশ গুলি চালালে সালাম, জব্বার, শফিক, বরকত ও রফিক গুলিবিদ্ধ হয়ে শহীদ হন।



সর্বশেষ

ফেসবুকে আমরা