শুক্রবার, এপ্রিল ১৬, ২০২১



সদ্য সংবাদ

  •   বাংলাদেশের সব খবর সহ আন্তর্জাতিক, বিনোদন, খেলার খবর ও অন্যান্য সব ধরণের খবর সবার আগে অনলাইনে পেতে চোখ রাখুন "টিএনএন" এ। আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও।

ক্যাম্পাস

ঋতুর রাজা বসন্ত এসে গেছে, আর বসন্তকে স্বাগত জানাতে ফুলে ফুলে সেজে উঠেছে প্রকৃতি। কারণ বসন্ত মানেই বাহারি ফুলের সমাহার। কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বসন্তের সেই গানটি মনে পড়ে যায়, "আহা আজি এ বসন্তে, কত ফুল ফোটে। কতো পাখি গায়।"  

ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ডুয়েট), গাজীপুর এর ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণেও বসন্তের ছোয়া লেগেছে। ক্যাম্পাসের প্রতিটি কোনা নানা রংয়ের বাহারি ফুলে ভরে গিয়েছে। বসন্তের ফুলের মুগ্ধতা ছড়িয়ে গেছে পুরো ক্যাম্পাস জুড়ে। বিশ্ববিদ্যালয় ও হল প্রশাসনের উদ্যোগে প্রতিটি হলের সামনে এবং ক্যাম্পাসের প্রায় প্রতিটি স্থানে গড়ে উঠেছে অনিন্দ্য সুন্দর ফুলের বাগান। এসব বাগানে ফুটেছে নানা রংয়ের হরেক রকমের ফুল। ফুল গুলোর মধ্যে রয়েছে - বিভিন্ন ধরনের গাঁদা, ডালিয়া, জিনিয়া, গোলাপ, চন্দ্রমল্লিকা, মোরগ ঝুঁটিসহ নানা প্রজাতির ফুল। ফুলে ফুলে উড়ে বেড়াচ্ছে প্রজাপতি আর মধু আহরণে ব্যাস্ত মৌমাছি। মনে হয় বসন্ত যেন তার পুরো রং-রূপ ঢেলে দিয়েছে ক্যাম্পাসে।

বিশিষ্ট লেখক ও গবেষক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান চৌধুরী, পরিচালক (গবেষনা ও সম্প্রসারণ),ডুয়েট, দ্যা নিউজ ন্যাশনকে বলেন, প্রকৃতির সৌন্দর্যের সাথে মানুষের মনের একটা সম্পর্ক আছে। প্রকৃতির কাছে আসলে আমাদের মন ভালো হয়ে যায়। প্রকৃতির সৌন্দর্য মনকে বিকশিত করে৷ আর এই বিকশিত মনকে মানুষ শিক্ষা ও গবেষণায় কাজে লাগাতে পারে। তিনি আরো বলেন ডুয়েটের ভেতরের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের মনকে বিকশিত করে শিক্ষা ও গবেষনার নতুন দ্বার উন্মোচিত করবে এবং ডুয়েটকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস না চললেও, বসন্তের নয়নাভিরাম সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে আসছেন। এছাড়াও প্রকৃতির টানে পার্শ্ববর্তী এলাকায় থাকা সৌখিন মানুষেরা তাদের বন্ধুবান্ধব, পরিবার-পরিজন নিয়ে ঘুরতে আসে এই ক্যাম্পাসে।

 তৌহিদ আহমদ সাকিব

 ডুয়েট প্রতিনিধি



সর্বশেষ

ফেসবুকে আমরা